কথিত আহলে হাদীস ও শব্দধারী মুসলিম জামাত নামধারী ফিতনাবাজদের ২০টি ওয়াসওয়াসার ইলজামী জবাব


কথিত আহলে হাদীস ও শব্দধারী মুসলিম জামাত নামধারী ফিতনাবাজদের ২০টি ওয়াসওয়াসার ইলজামী জবাব

প্রশ্ন-১
আবু হানিফার উস্তাদ হাম্মাদ কোন মাযহাব মানতেন?

ইলজামী জবাব

ইমাম বুখারী বুখারী সংকলনের আগে মানুষ সহীহ হাদীস কোথা থেকে দেখে আমল করত? ইমাম বুখারীর উস্তাদ মক্কী বিন ইবরাহীম কোন সহীহ কিতাবের হাদীস মানতেন?

প্রশ্ন নং-২.

হাম্মাদের উস্তাদ ইবরাহিম নাখয়ি কোন মাযহাব মানতেন?

ইলজামী জবাব-

ইমাম বুখারী বুখারী সংকলনের আগে মানুষ সহীহ হাদীস কোথা থেকে দেখে আমল করত?
মক্কী বিন ইবরাহীমের উস্তাদ ইবনে জুরাইজ কোন সহীহ কিতাবের হাদীস মানতেন?

প্রশ্ন নং-৩

আবু হানিফারর ছাত্ররা কেন তার ফতোয়ার ৩ ভাগের ২ ভাগের বিরোধতা করলেন?

ইলজামী জবাব-

ইমাম বুখারীর ছাত্র ইমাম তিরমিজী কেন ইমাম বুখারীর সহীহকে অনেক ক্ষেত্রেই তরক করে দিয়ে অন্য হাদীস গ্রহণ করেছেন?
প্রথম কথা হল, তাহলে বুঝা যায় হানাফী মাযহাবের আলেমরা বা মানুষরা ইমাম আবু হানিফাকে অন্ধ অনুসরন করে না। তো আপনি কি বলতে চাচ্ছেন কেন অন্ধ অনুসরন করে নি ?

প্রশ্ন নং-৪

আবু ইউসুফ ও মুহামমাদের মাঝে দুশমনি শুরু হয় কেন?

ইলজামী জবাব

হযরত মুয়াবিয়া রা. ও হযরত আয়েশা রা. এর সাথে হযরত আলী রা. এর দুশমনি শুরু হল কেন ? এখন কে ভ্রান্ত এবং জাহান্নামী ?

প্রশ্ন নং-৫

ইসা আ. কোন মাযহাব মানবেন? তিনি নাকি ইজতেহাদ করবেন। নবি রাসুলরাও আবার ইজতেহাদ করেন? তবে ওহি আসার দরকার কি ছিল?

ইলজামী জবাব

ঈসা আ. কোন হাদীসের কিতাব মানবেন? সিহাহ সিত্তা নাকি অন্য কিতাব? সহীহ হাদীস মানবেন নাকি হাসান হাদীস? নাকি তিনি নিজেই হাদীসের পরিভাষা প্রণয়ন করবেন? নবী রাসূলরাও কি সহীহ হাসান, জঈফ ইত্যাদি শব্দে হাদীসের বিভক্তি করে থাকেন?
হাদীসের যে বলা হলেছে ইজতেহাদের ভুল হলে এক সওয়াব – তা বলা হয়েছে কেন ? নবী স. কি উম্মতের সাথে মসকরা করে গেছেন?

প্রশ্ন নং-৬

মুসলিম খলীফা কোন মাযহাব হতে নির্বাচিত হবেন?

ইলজামী জবাব

মুসলিম খলীফারা কার পরিভাষা মেনে হাদীস সহীহ জঈফ হিসেবে আমল করবেন? ইমাম বুখারীর না ইমাম মুসলিম নাকি অন্য কারো? পূর্ববর্তী মুসলিম খলিফারা কার বানানো সহীহ জঈফ পরিভাষার অনুসরন করতেন?

প্রশ্ন নং-৭

ইতিহাসে ২১ জন আবু হানিফা পাওয়া যায়। কোন আবু হানিফা হানাফি মাযহাব বানালেন?

ইলজামী জবাব

ইতিহাসে অসংখ্য মুহাম্মদ বিন ইসমাইল পাওয়া যায়, কার নামে বুখারী শরীফ বানানো হল?

প্রশ্ন নং-৮

হানাফি মাযহাব ঠিক হলে পরে আরো কোন মাযহাব আসলো?

ইলজামী জবাব

প্রতি কিরাতই সঠিক হলে, সাত কিরাতে কুরআন নাজিল হল কেন? ইমাম বুখারীর সহীহ এর সংজ্ঞা সঠিক হলে পরবর্তীতে তার ছাত্ররা নতুন করে সহীহের সংজ্ঞা বানালেন কেন?

প্রশ্ন নং-৯

হানাফি ফেকার কিতাব যেমন : হেদায়া, শরহে বেকায়া ইতা্যাদি কিতাবগুলিতে মাযহাব মানা ফরজ/ নফল/ সুন্নাত / ওয়াজিব / মুস্তিহাব — এর পক্ষ্যে কোন দলীল নেই কেন?

ইলজামী জবাব

বুখারী শরীফকে সহীহ হাদীসের গ্রন্থ মানতে হবে একথা কুরআন ও সহীহ হাদীসের কোথাও নেই কেন?

প্রশ্ন নং-১০.

সাধারণ জনতা তাকলীদ করবে কারন সে হক ও বাতিল বুঝে না। তবে সে কিভাবে বুঝবে হানাফি মাযহাবই ঠিক? সে কিভাবে দেওবন্দি, ব্রেলভি ও হাজার হাজার পীরের মধ্য হতে হককে বেছে নিবে? ।

ইলজামী জবাব

লক্ষ লক্ষ জাল হাদীস পৃথিবীতে বিদ্যমান। তাহলে এই সকল জাল হাদীস থেকে সহীহ হাদীসগুলো কিভাবে বেছে নিবে সাধারণ মানুষ?

প্রশ্ন নং-১১

দলীল সহ জানার জন্য কেন আদেশ করা হল তাকলিদ যদি করাই সঠিক হতো?

ইলজামী জবাব

দলীলসহই যদি সবার দ্বীন মানার আদেশ হয়ে থাকে, তাহলে সূরা ফাতিহাতে কেন নিয়ামতপ্রাপ্ত বান্দাদের অনুসরনের কথা বলা হয়েছে দলীলের কথা উল্লেখ না করেই?
কুরআন ও হাদীসের আলোকে জানাবেন আশা করি

প্রশ্ন নং-১২

দুজন আলেমদের মধ্যে মতবিরোধ হওয়া এবং তাদের নামে মাজহাব বানানো কি এক বিষয় কিনা?

উত্তর

আলেমের মতভেদ আর মুজতাহিদের মতভেদ এক বস্তু নয়। এমন সাধারণ কথাও যিনি বুঝতে পারেন না তিনি এমন জ্ঞানী সাজার অপচেষ্টা কেন করছেন আমাদের বুঝে আসে না।
আলেমের মতভেদ আর মুজতাহিদের মতভেদকে এক পাল্লায় মাপা আর দুই ডাক্তারের মতভেদ আর দুই শিশুর মতভেদকে এক পাল্লায় মাপার মতই আহমকী বৈ কিছু নয়। আগে সাধারণ ডিগ্রিধারী আলেম আর মুজতাহিদের সংজ্ঞাটি শিখে নিন। তারপর এ উদ্ভট কিয়াস করতে আসুন।

প্রশ্ন নং-১৩

যদি এক বিষয় হয়, তবে সাহাবীগণও তো ইখতিলাফ (মতবিরোধ) করেছেন। তাদের নামে কেন মাজহাব হলো না?

ইলজামী জবাব

সহীহ নামের কিতাবতো ইবনে খুজাইমা রহঃ এবং ইবনে হিব্বান রহঃ এবং মুস্তাদরাক সংকলকও করেছেন, কিন্তু তাদের কিতাব কেন সিহাহ সিত্তায় শামিল হলো না?
হাদীসের সকংলকনতো সাহাবাগণও করেছেন, তাহলে তাদের সংকলিত গ্রন্থকে কেন সিহাহ সিত্তায় শামিল করা হয়নি?

প্রশ্ন নং-১৪

আর যদি এক বিষয় না হয় তবে আলেমদের মতভেদকে কেন্দ্র করে ৪ মাজহাব বানানোটা কি ভুল নয়? ৪। যদি ভুল হয় তবে সেটা স্বীকারনা করা কি শয়তানের লক্ষণ নয়?

ইলজামী জবাব

আলেমদের মতভেদকে কেন্দ্র করে হাদীসের খন্ড খন্ড করে, সহীহ লিগাইরিহী, সহীহ লিজাতিহী, হাসান লিজাতিহী, হাসান লিগাইরিহী, ইত্যাদি নামে হাদীসকে দ্বিখন্ডিত করা কিভাবে জায়েজ হয়েছে?
হাদীসের কিতাবকে বিভক্ত করে সিহাহ সিত্তা বলে অসংখ্য সহীহ হাদীসওয়ালা অন্যান্য কিতাবের সাথে কেন এমন বিমাতাসূলভ আচরণ করা হলো? হাদীসের মাঝে এমন বিভক্তি করতে কোন সহীহ হাদীসে নির্দেশ এসেছে?
১২৪৬হিজরীর সৃষ্ট বিদআতি মাযহাব কথিত আহলে হাদীসী মাযহাবে ভন্ডামীপূর্ণ মতাদর্শী অনুসারীদের ভন্ডামী প্রকাশিত হওয়ার পরও নিজেদের ভুল স্বীকার না করা কি শয়তানী কর্ম নয়?

প্রশ্ন নং-১৫

মাজহাবীরা বলে থাকে জানা না থাকলে আলেমদের জিজ্ঞেস করতে হবে। কোন আলেমকে কোন ফাতওয়া জিজ্ঞেস করা মানেই কি এই যে সে আলেমের নামে মাজহাব বানিয়ে তাতে প্রবেশ করা কি এক বিষয়?

ইলজামী জবাব

আপনি আগে ডিগ্রিধারী আলেম্ ও মুজতাহিদ শব্দের তাহকীকটি শিখে আসুন। তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার প্রশ্নটি একটি আহমকী ও অজ্ঞতাসূচক প্রশ্ন। মুজতাহিদের অনুসরণকে সাধারণ আলেমের অনুসরণের কিয়াস করা কুরআনের কোন আয়াত বা হাদীস দ্বারা প্রমানিত?
জাহিলীপূর্ণ প্রশ্ন এটি। মুজতাহিদ ও গায়রে মুজতাহিদের পার্থক্যও যিনি বুঝতে সক্ষম নয় তিনি এসেছেন জ্ঞান ঝাড়তে। মুজতাহিদ গবেষণা করে ফাতওয়া দিবেন। আর সেই ফাতাওয়া জেনে সাধারণ আলেম অজ্ঞ সাধারণ মুসলিমদের জানাবে।
দুটি ভিন্ন বস্তকে গুলিয়ে ফেলা আহমকের কাজ।

প্রশ্ন নং-১৬

যদি কিছু আলেম কোন ভুল সিদ্ধান্ত নেয়, তারপরেও কি আপনি সেই আলেমদের ভুল সিদ্ধান্তের অনুসরণ করে যাবেন?

উত্তর

আলেম আর মুজতাহিদ এক বস্তু নয়। মুজতাহিদের ভুলেও একটি সওয়াব নিহিত। ভুল করেছেন কি না? সেটি বুঝতে পারবে আরেকজন মুজতাহিদ। যেমন ডাক্তারের প্রেশক্রিপশনের ভুল বুঝেতে পারবে আরেকজন ডাক্তার। মুচি নয়।
মুজতাহিদ ভুল করেছেন কিনা? সেটি আপনার মত জাহিল অন্য ভাষায় মুচি ডাক্তারের ভুল ধরবে কিভাবে?

প্রশ্ন নং-১৭

আল্লাহ তো আমাদের ভালো মন্দের জ্ঞান দিয়েছেন। আপনি যদি সেটা ব্যবহার না করেন, তবে নিজের এই ভুলের জন্য কি জবাব দিবেন?

ইলজামী জবাব

আমাদের প্রশ্নতো সেটাই। কুরআন ও সহীহ হাদীসের অনুসরণের দাওয়াত দিচ্ছেন, মুজতাহিদের অনুসরণকে শিরক বলছেন। অথচ কুরআন ও সহীহ হাদীস দিয়ে দুই রাকাত নামায দেখাতে পারেন না কারো কারো না অন্ধ তাকলীদ করে। চোখে আঙ্গুল দিয়ে বারবার ভুলগুলো ধরিয়ে দেবার পরও গোড়ামী যে অহর্নিশি করে যাচ্ছেন এর কি জবাব দিবেন হাশরের ময়দানে?

প্রশ্ন নং-১৮

আবু তালেব অন্ধভাবে তার পূর্ব পুরুষদের আকড়ে ধরেছিলেন। আপনিও কি সেই একই ভুল করবেন?

ইলজামী জবাব

একই প্রশ্ন আপনাদের জন্য। অন্ধভাবে পূর্ব পুরুষ আব্দুল হক বানারসী, মুহাম্মদ হুসাইন বাটালবী, মিয়া নজীর আহমাদ, নওয়াব সিদ্দিক হাসান খান, নাসীরুদ্দীন আলবানী প্রমুখ পূর্ব পুরুষদের বিদআতি মতবাদ আঁকড়ে ধরে থাকবেন, নাকি বিবেকটাও একটু খাটাবেন?

প্রশ্ন নং-১৯

সূরা রুমের ৩১-৩২নং আয়াতে যারা দ্বীনকে বিভক্তকরে (আলেমরা)এবং যারা দলে দলে বিভক্ত হয়(আলেমদের ফাতওয়ার অনুসারীরা)তাদের সবাইকে মহান আল্লাহ”””মুশরিক””” বলে ফাতওয়া দিয়েছেন। আপনারা ৪ মাজহাবের ১টায় প্রবেশ করে বিভক্ত হয়ে সেই মুশরিকের খাতায় যে নাম লেখাননি তার কোন প্রমাণ কি আপনার নিকট আছে?

ইলজামী জবাব

এই উপমহাদেশে কোন ধর্মী’য় বিভক্তি ছিল না। ১২৪৬ হিজরী থেকে নতুন বিদআতি মাযহাব আব্দুল হক বানারসীর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত করে মুসলিমের মাঝে যে অনৈক্য আর বিভক্তির নোংরা খেলায় মেতেছেন আপনারা এর জন্য কুরআনের আয়াতটিকে আপনাদের একবারও মনে পড়ছে না। নিজের দলীলেইতো নিজে মুশরিক হয়ে যাচ্ছেন।
এই শিরক থেকে খাটি ঈমান কি আপনাদের কখনোই নসীব হবে না? নাকি আল্লাহ অন্তরে মোহর মেরে দিয়েছেন? এভাবে দ্বন্দ আর বিভক্তির ভয়ানক খেলায় মেতে আপনারা যে মুশরিকের খাতায় নাম লেখাননি এর কোন প্রমাণ কি আপনাদের কাছে আছে?

প্রশ্ন নং-২০

সূরা আনআম এর ১৫৯নং আয়াতে বলা হয়েছে যারাদ্বীনকে বিভক্ত করে ও দলে দলে ভাগ হয়, তাদের সাথে নাবী সাঃ এর কোন”””সম্পর্ক”””নেই। বিভক্তির ফাতওয়া মেনে দলে দলে ভাগ হওয়ার পরেও কি আপনি এই দাবী করতে পারেন যে আপনার সাথে নাবী সাঃ এর কোন সম্পর্ক আছে?

ইলজামী জবাব

শুব্বানে আহলে হাদীস।
আহলে হাদীস আন্দোলন বাংলাদেশ।
জমিয়তে আহলে হাদীস বাংলাদেশ।
গুরাবায়ে আহলে হাদীস।
আহলে হাদীস যুব আন্দোলন ইত্যাদি নামে মুসলমানদের দলে দলে ভাগ করার পরও আপনি কি দাবি করতে পারেন যে, আপনাদের সাথে রাসূল সাঃ এর কোন সম্পর্ক আছে?

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s